আর্চারের গতিময় বোলিংয়ে আফ্রিকাকে পরাজিত করলো ইংল্যান্ড

স্পোর্টস ডেক্স,  ৩১ মে ২০১৯: ইংল্যান্ডের চার ব্যাটসম্যানের ফিফটির পরও লক্ষ্যটা দক্ষিণ আফ্রিকার নাগালে ছিল। দারুণ বোলিংয়ে গতিময় পেসার জফরা আর্চার সেটা নিয়ে গেলেন ধরা ছোঁয়ার বাইরে। বড় জয় দিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করল ওয়েন মর্গ্যানের দল।

জিততে বিশ্বকাপে নিজেদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ রান তাড়ার রেকর্ড গড়তে হতো দক্ষিণ আফ্রিকাকে। আর্চারের গতিময় বোলিংয়ে যেতে পারেনি এর ধারে কাছে। টপ অর্ডারে ছোবল দিয়ে সুর বেঁধে দেন এই পেসার। পরে বোলিংয়ে ফিরে থামান প্রতিপক্ষের আশা হয়ে টিকে থাকা রাসি ফন ডার ডাসেনকে।

কেনিংটন ওভালে বৃহস্পতিবার বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে ১০৪ রানে জিতেছে স্বাগতিকরা। ৩১১ রান তাড়ায় ৩৯ ওভার ৫ বলে ২০৭ রানে গুটিয়ে গেছে দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংস।

চমক দিয়ে শুরু হয় ম্যাচ। দক্ষিণ আফ্রিকার সবচেয়ে বড় শক্তি তাদের পেস আক্রমণ। তবে প্রথম ওভারে অধিনায়ক ফাফ দু প্লেসি বল তুলে দেন ইমরান তাহিরের হাতে। ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো ইনিংসের প্রথম ওভারে বোলিং করা এই লেগ স্পিনার শুরুতেই ফিরিয়ে দেন জনি বেয়ারস্টোকে।

বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ইংল্যান্ডের প্রথম শতরানের জুটিতে শুরুর ধাক্কা সামাল দেন রয় ও রুট। তবে সম্ভাবনাময় ইনিংসকে পূর্ণতা দিতে পারেননি তারা।

অষ্টাদশ ওভারে পঞ্চাশ স্পর্শ করেন দুই ব্যাটসম্যান। পরের দুই ওভারে রুট-রয়কে ফিরিয়ে দেয় দক্ষিণ আফ্রিকা। ৫৩ বলে ৮ চারে ৫৪ রান করা রয়কে থামিয়ে ১০৬ রানের জুটি ভাঙেন আন্দিলে ফেলুকোয়ায়ো। ৫৯ বলে ৫১ রান করা রুটকে বিদায় করেন কাগিসো রাবাদা।

রানের গতিতে দম দিতে ইংল্যান্ড তাকিয়ে ছিল জস বাটলারের দিকে। লুঙ্গি এনগিডির বল স্টাম্পে টেনে এনে বোল্ড হয়ে ফিরেন এই বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান। মইন আলিকে দ্রুত ফেরান এনগিডি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজে জন্ম নেওয়া আর্চারকে নিয়ে বিশ্বকাপ দল চূড়ান্ত করার আগে ইংল্যান্ডের ক্রিকেটে ছিল তুমুল আলোচনা। কেন তাকে নিয়ে এতো আগ্রহ সেটা প্রথম ম্যাচেই দেখিয়ে দিলেন ২৪ বছর বয়সী পেসার।

এইডেন মারক্রাম ও দু প্লেসিকে দ্রুত ফিরিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকাকে চাপে ফেলে দেন আর্চার।আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে দলকে পথ দেখানো ডি কক ফিরেন বাজে এক শটে। ৭৪ বলে ৬ চার ও দুই ছক্কায় ৬৮ রান করে ধরা পড়েন রুটের হাতে। এরপর আর তেমন কোনো জুটি পায়নি দক্ষিণ আফ্রিকা। দ্বিতীয় স্পেলে ফিরে ৬১ বলে ৫০ রান করা ফন ডার ডাসেনকে থামান আর্চার।

দুই স্পেলে ৭ ওভারে ২৭ রানে ৩ উইকেট নেন আর্চার। দুটি করে উইকেট নেন স্টোকস ও প্লানকেট।ব্যাটে-বলে-ফিল্ডিংয়ে নিজেকে মেলে ধরে উদ্বোধনী ম্যাচে সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার জিতে নেন অলরাউন্ডার স্টোকস।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ইংল্যান্ড: ৫০ ওভারে ৩১১/৮

দক্ষিণ আফ্রিকা:  ৩৯.৫ ওভারে ২০৭

ইংল্যান্ড ১০৪ রানে জয়ী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares