লোহার পাত দিয়া আমার গোপনাঙ্গে ছ্যাঁকা দিত

নিউজ ডেক্স১০ জুলাই ২০১৯: আপনার বাসায় থাকব না। আন্টি আমারে টেকাটা দিয়া দেন, আমি বাড়ি যাবগা। এই কথা বলার কারণে উনি, উনার ছেলে আর মেয়ে মিলে আমারে গরম ইস্ত্রির ছ্যাকা লাগাইছে।

সব জায়গাতেই ছ্যাকা দিয়েছে। বাদ যায়নি গোপনাঙ্গ ও স্পর্শকাতর স্থানও। আমার মাথায় খুন্তি দিয়া বাইরাইছে। খুন্তি গরম কইরা ছ্যাকা দিছে। হাতের মাঝে লোহার পাত দিয়া বাইরাইছে। পাকার মাঝে হাত রেখে ওরা আমারে বাইরাইছে। পায়ে বাইরাইছে। তালা দিয়ে মেরে ভেঙে দিছে সামনের পাটির একটি দাঁতও।

এই ভাবেই অভিযোগগুলো করে গুরুতর অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিকেল ভর্তি হালুয়াঘাটের দর্শারপাড় গ্রামের হাবিবুর রহমানের ১৫ বছরের মেয়ে লিমা আক্তার। চার মাস আগে রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট কচুক্ষেত এলাকায় মীর ওরফে মাহী বেগমের বাসায় গৃহপরিচারিকার কাজ নেয় হালুয়াঘাটের লিমা আকতার।স্বজনদের দাবি, কাজ শুরুর কয়েকদিন পরে বিভিন্ন অজুহাতে তাকে মারধর করতো মাহী বেগম ও তার ছেলে ওয়াদা।

সম্প্রতি তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ইস্ত্রি ও রড গরম করে ছ্যাকা দেয়া হয়। গৃহকর্তী ও তার ছেলের সঙ্গে লিমার ওপর নির্যাতনে যোগ দেয় আরেক গৃহপরিচারিকা পিংকিও। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় লিমাকে গুরুতর অবস্থায় হালুয়াঘাটের একটি বাসে উঠিয়ে দেন মীম বেগম। পরে বুধবার সকালে তাকে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।নি র্যাতিত লিমা বলেন,রোজার মাস পুরাটাই আমাকে মেরেছে। আমাকে আয়রন দিয়ে ছ্যাকা লাগাইছে। এছাড়া রড দিয়ে হাতে ও মাথায় মে রেছে।

লিমার মা বলেন, আমার মেয়েকে এভাবে যারা মে রেছে, তাদের শা স্তি চাই। বিচার চাই। পরে তাকে স্থানান্তর করা হয় ময়মনসিংহ মেডিকেলে। অমানুষিক নি র্যাতনে লিমার দুটি দাঁতও ভেঙে গেছে। তার শরীরে গভীর ক্ষত রয়েছে বলে জানান কর্তব্যরত চিকিৎসক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares