রংপুর অঞ্চলে বাড়ছে পানিবন্দি মানুষ, রয়েছে ভয়াবহ বন্যার আশঙ্কা

নিউজ ডেক্স১২ জুলাই ২০১৯: টানা বর্ষণ ও উজানের পাহাড়ি ঢলে রংপুর অঞ্চলের ব্রহ্মপুত্র, করতোয়া, ঘাঘট, দুধকুমরসহ, তিস্তা, ধরলা, অন্যান্য নদ-নদীতে পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। তিস্তার পানি ডালিয়া পয়েন্টে বিপদ সীমার ২০ সেন্টিমিটার এবং ধরলার পানি কুলাঘাট পয়েন্টে ৭ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

রংপুর বিভাগের বিভিন্ন জেলার পানিবন্দি মানুষের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে।এদিকে, রংপুরের গঙ্গাচড়ার লক্ষ্মীটারি ইউনিয়নের পূর্ব ইছলি গ্রামে তিস্তার প্রবল স্রোতে ভেসে গেছে সংযোগ সড়ক। এছাড়াও বয়াবহ বন্যা দেখাদিলে পানিবন্দি মানুষের সাথে পশু খাদ্যের তীব্র সংকট দেখা দিতে পারে বলে মনে করছে সচেতন মহল।

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার দহগ্রাম, হাতীবান্ধার সানিয়াজান, গড্ডিমারী, সিন্দুর্না, পাটিকাপাড়া, সিংগিমারী, কালীগঞ্জ উপজেলার ভোটমারী, কাকিনা, আদিতমারী উপজেলার মহিষখোচা, সদর উপজেলার খুনিয়াগাছ, রাজপুর, গোকুন্ডা, কুলাঘাট ও মোগলহাট ইউনিয়নের তিস্তা ও ধরলার নদীর চরাঞ্চল প্লাবিত হয়ে পড়েছে।

এসব ইউনিয়ের প্রায় ১০ হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। পানি বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে পানিবন্দি মানুষের সংখ্যা।পানিপ্রবাহ বৃদ্ধি পাওয়ায় তিস্তার তীরবর্তী এলাকার ব্রিজ কালভার্ট ও বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধগুলো হুমকির মুখে পড়েছে। ভেসে যাচ্ছে শত শত পুকুরের মাছ। নষ্ট হয়েছে চাষিদের বাদাম, ভুট্টা ও সবজিসহ নানান ফসল।

হাতীবান্ধা উপজেলার চর সিন্দুর্না গ্রামের আলতাব উদ্দিন ও আবু তালেব জানান, দু’দিন ধরে পানিবন্দি থাকার পর বুধবার মধ্যরাতে হঠাৎ তিস্তার পানি বাড়তে থাকে। টানা তিনদিন থেকে পানিবন্দি রয়েছেন তারা। তবে তারাও কোনো প্রকার সহায়তা পাননি বলেও অভিযোগ করেন।

লালমনিরহাট জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন অফিসার আলী হায়দার জানান, জেলার ৫টি উপজেলার বন্যা কবলিতদের ত্রাণ দিতে জেলা প্রশাসন থেকে ৬৮ মে. টন জিআর চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

কুড়িগ্রামে সব নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। এতে করে নদ-নদী তীরবর্তী নিম্নাঞ্চলের ঘরবাড়িতে পানি প্রবেশ করায় পানিবন্দি হয়ে পড়েছে প্রায় ২০টি গ্রামের ১০ হাজার মানুষ। গ্রামীন রাস্তাঘাট তলিয়ে যাওয়ায় চলাচলে দুর্ভোগে পড়েছে এসব এলাকার মানুষজন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares