কে হচ্ছেন বিশ্বকাপ ২০১৯-এর টুর্নামেন্ট সেরা?

স্পোর্টস ডেক্স,  ১৪ জুলাই ২০১৯:  আজ রবিবার আইসিসি বিশ্বকাপ ফাইনালে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হচ্ছে নিউজিল্যান্ড। বাংলাদেশ সময় বিকাল সাড়ে ৩টায় ম্যাচটি শুরু হবে।দেশ দুটি কখনই শিরোপা না জেতায় নতুন চ্যাম্পিয়ন পাচ্ছে ক্রিকেট বিশ্ব। তবে, এর মাঝেও আলোচনা তুঙ্গে টুর্নামেন্ট সেরার লড়াই নিয়ে।

যেখানে সাকিব আল হাসানের সঙ্গে রয়েছেন, দুই অস্ট্রেলীয় ওয়ার্নার ও স্টার্ক। আছেন ভারতের হিটম্যান খ্যাত রোহিত শর্মাও।বিশ্বকাপ কার ঘরে যাবে তার চেয়েও বেশী আলোচনা টুর্নামেন্টের সেরা ক্রিকেটার হবেন কে?

দল সফল না হলেও ব্যক্তিগত অর্জনকে স্বীকৃতি দেওয়া হবে কি না তা নিয়ে ছিলে ধোঁয়াশা। এমন ধরাবাধা নিয়ম না থাকলেও সব হিসাবেই সুযোগ খোলা রোহিত সাকিব ওয়ার্নার স্টার্কদের।দলের জয়ে সবচেয়ে বেশী প্রভাব রোহিত শর্মা ও ডেভিড ওয়ার্নারের।

বিশ্বকাপ ইতিহাসে ৫ সেঞ্চুরি করা একমাত্র ক্রিকেটার রোহিত শর্মা, যার চার শতকই ম্যাচ উইনিং। ৬৪৮ রান নিয়ে এখনও সবার ওপরে রোহিত।এদিকে স্টার্ক ২ বার চারটি করে আর দুই ম্যাচে ৫ উইকেট শিকার করছেন। তবুও ম্যান অব দ্য ম্যাচ হননি একবারও। ২৭ উইকেট নিয়েও টানা দ্বিতীয়বার টুর্নামেন্ট সেরার পুরষ্কারটা কঠিনই হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার বিদায়ে।ওয়ার্নারের তিন সেঞ্চুরি, তিন অর্ধশতক। পাকিস্তান, আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে ম্যাচ উইনিং ইনিংস।

বিশ্বকাপ ইতিহাসের একমাত্র ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান, যার ঝুলিতে ছয়শতাধিক রানের সঙ্গে ১০টির বেশি উইকেট। আট ইনিংসের সাতটিতেই পঞ্চাশ পেরুনো স্কোর। দুই সেঞ্চুরিসহ ৬০৬ রান। উইকেট ১১টি।

তবে দলের সাফল্যে ভূমিকা রাখায় এগিয়ে থাকবেন কেন উইলিয়ামসন। আফগানিস্তানের সঙ্গে ৬৯, দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১০৬ আর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে উইলিয়ামসনের ১৪৮ রান ম্যাচ উইনিং। টপঅর্ডারের ঘাটতিও ঢেকে দিয়েছেন একা হাতে।রান ৫৪৯ আহামরি নয়, তবে ১২টি ক্যাচ যোগ করলে ম্যাচ উইনিং ইমপ্যাক্ট জো রুটেরও কম নয়।

সতীর্থ জোফরা আর্চার ১৯ উইকেট নিয়ে বোলারদের শীর্ষ তিনে। ইংল্যান্ডও ফাইনাল খেলছে বলে, টুর্নামেন্ট সেরার বাতাসটা রুট আর্চারদের দিকেও।কে জানে ম্যান অব দ্য টুর্নামেন্টের নিশ্চয়তা পেলে, লর্ডস ঘুরে আসতেও পারেন সাকিব। এখনও যে অবকাশ যাপনে ইউরোপেই আছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।

তবে বড়মঞ্চে টুর্নামেন্ট সেরার হিসাবটা হয়ে যায় সেমিফাইনাল পর্যায়েই। সেক্ষেত্রে ভাগ্য হাসতে পারে সাকিব রোহিত ওয়ার্নার স্টার্কের দিকেও।৯২ বিশ্বকাপে ম্যান অব দ্য টুর্নামেন্ট চালু হয়। ওই আসরে মার্টিন ক্রো আর ৯৯ বিশ্বকাপে লান্স ক্লুসনার ছাড়া চ্যাম্পিয়ন রানার্সআপ দলের বাইরে যায়নি টুর্নামেন্ট সেরার স্বীকৃতি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares