ভাইয়ের মৃত্যুর পরও ভেঙ্গে পড়েনি আর্চার

নিউজ ডেক্স১৬ জুলাই ২০১৯: ইংল্যান্ডের হয়ে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ খেলতে এসেই বাজিমাত দেখান জোফরা আর্চার। অল্প ক’ম্যাচে দলের নির্ভরযোগ্য হয়ে ওঠেন তিনি। এমনকী ফাইনালের দিনও সুপার ওভার তাকে দিয়ে করান ইংলিশ অধিনায়ক মরগ্যান। অর্থাৎ তার কাঁধে দিয়ে দেন বিশাল দায়িত্বভার। বলে দেন, যেভাবে হোক তাকেই বিশ্বকাপ এনে দিতে হবে। আর তা পেরেছেনও আর্চার।

ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ জয়ের এতো আনন্দের মাঝেও যে বুকের ভেতর বড় একটা ব্যথা নিয়ে ঘুরছেন আর্চার, সেটা হয়ত জানতেন না কেউই। ফাইনালের পর আর্চারের বাবা ফ্র্যাঙ্ক দ্যা টাইমসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, বিশ্বকাপ শুরুর একদিনের মাথায় আর্চারের কাজিনকে গুলি করে হত্যা করেছিল দুর্বৃত্তরা।

সেই শোক আড়ালে রেখেই পুরো বিশ্বকাপে খেলেছেন আর্চার।অন্য দশজন কাজিনের চেয়ে ২৪ বছর বয়সী আশান্তিও ব্ল্যাকম্যান ছিলেন আর্চারের খুব কাছের। দুজনে বেড়ে উঠেছেন একসাথে, অনেক ক্রিকেটও খেলেছেন। ভাই ও প্রিয় বন্ধুর এমন মৃত্যু কিছুতেই মানতে পারছিলেন না তিনি।

কিন্তু নিজের শোকটা কখনোই প্রকাশ করেননি আর্চার। বিশ্বকাপ শেষে ২০ উইকেট নিয়ে ইংল্যান্ডের শিরোপা জয়ে বড় ভূমিকা ছিল তারই।আর্চারের বাবা জানিয়েছেন, আশান্তিওর মৃত্যুর খবরে ভেঙে পড়েছিলেন আর্চার, ‘তারা দুইজন সমবয়সী ছিল। মারা যাওয়ার আগের দিনও দুইজনের কথা হয়েছে। এমন কাছের মানুষের মৃত্যু আর্চারকে খুব কষ্ট দিয়েছে। কিন্তু সে এই কষ্ট চেপে রেখেই এগিয়ে গেছে।  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares